fbpx
মাধ্যমিকে সফল হওয়ার সহজ উপায়

মাধ্যমিকে সফল হওয়ার সহজ উপায়

 

আমরা সবাই জানি যে পরীক্ষা আমাদের জীবনে একটি গুরুত্ব পূর্ণ ভূমিকা পালন করে। আমরা এই মুহৃর্তে কোন অবস্থায় আছি তা জানতে আমাদের সাহায্য করে। মাধ্যমিক বা উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা আমাদের শিক্ষা জীবন কে কোন দিকে নিয়ে যাবে তা নির্ধারণ করতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। এই পরীক্ষা গুলির ফল আমাদের উচ্চ শিক্ষায় কোন নতুন দিগন্ত খুলবে তা অনেকটাই নিধারণ করে থাকে।

টেস্ট বা প্রিটেস্টে কেউ যদি খারাপ রেজাল্ট করে থাকে তার মানে এই নয় যে মূল পরীক্ষাতেও তার রেজাল্ট খারাপ হবে। যে কোন ছাত্র বা ছাত্রী যদি নিচের এই পাঁচটি পদ্ধতি অবলম্বন করে তা হলে মূল পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট অবশ্যম্ভাবী। প্রিটেস্ট বা টেস্ট এর খারাপ রেজাল্ট থেকে কি ভাবে ভালো রেজাল্টএ পৌঁছনো যায়।

ভালো রেজাল্ট এর পাঁচটি উপায় : –

১. পরিকল্পনা ও নিয়মানুবর্তিতা : –

আগের রেজাল্ট গুলো থেকে প্রথমে বেছে নিতে হবে কোন বিষয়ে আমাদের দুর্বলতা আছে। সেই বিষয় বা বিষয় গুলিকে তালিকা ভুক্ত করে বেশি সময় নিধারণ করতে হবে। দুর্বল বিষয় গুলি কে যেমন সময় দিতে হবে তেমনি বাকি বিষয় গুলি তেও পর্যাপ্ত সময় দিতে হবে। না হলে দুর্বল বিষয় গুলি ঠিক করতে গিয়ে বাকি বিষয় গুলিও দুর্বল হয়ে যাবে।

২. বিষয় ভিত্তিক শর্ট নোট : –

পরীক্ষার আগে সমস্ত বিষয়ের প্রতিটি লাইন রিভিশন করা সম্ভব নয়। সেই কারণে বিষয় ভিত্তিক শর্ট নোট এবং লিস্ট তৈরী করতে হবে , যেন মূল পয়েন্ট গুলি এতে চলে আসে। দরকার মতো আগে থেকে কিছু চিত্র / মানচিত্র তৈরী করে রাখতে হবে। এই চিত্র গুলি যেন পদ্ধতির প্রতিটি ধাপ কে সুন্দর ভাবে প্রতিফলিত করতে পারে।

এটি সহজ উপায় যার মাধ্যমে আমরা সমস্ত পয়েন্ট গুলি হাতের কাছে পাবো এবং অল্প সময়ে বার বার রিভিশন করতে পারবো।

৩. আগের বছর গুলির প্রশ্নপত্র : –
আগে বছর গুলির প্রশ্নপত্র গুলি বারবার সমাধান করতে হবে , এর ফলে নিজের মধ্যে পরীক্ষা সমন্ধে যেমন আত্মবিশ্বাস তৈরী হবে তেমনি কি ধরণের প্রশ্ন আস্তে পারে সেই সম্পর্কে একটি স্বচ্ছ ধারণা তৈরী হবে। পুরোনো প্রশ্ন থেকে আমরা ধারণা করতে পারবো কোনো বিষয়ের কোন অংশ থেকে বেশি প্রশ্ন আসছে।  অর্থাৎ সেই সেই অংশ গুলিতে বেশি করে সময় দিতে হবে।
বর্তমানে MCQ  প্রশ্ন একটি গুরুত্ব পূরণ ভূমিকা পালন করে , যেখান থেকে খুব সহজে অনেক বেশি নম্বর তুলে নেওয়া যায়।  এই অংশে বেশি নাম্বার পেতে হলে বার বার অভ্যাস করতে হয়। বর্তমানে অনেক অনলাইন MCQ পাওয়া যায় সেখানে বেশি করে অভ্যাস করতে হবে। www.prepnet.in এ গিয়েও অভ্যাস করতে পারো।
৪. বিষয় বস্তু বুঝে পড়াশুনো করতে হবে :-
অনেক সময় ছাত্র ছাত্রীরা কোনো একটি বিষয় বুঝতে না পারলে মুখস্ত করে নেবার চেষ্টা করে , কিন্তু সেটি সঠিক পদ্ধতি নয়।  কোন অংশ বুঝতে না পারলে অন্য কারোর সাহায্য নিতে হবে।  কোন অংশ বুঝে না পড়লে যদি একটু অন্য্ রকম প্রশ্ন আসে তাহলে উত্তর দিতে পারবে না।  রেজাল্ট ভালো করতে হলে অবশ্যই খুব ভালো করে বিষয় বস্তু বুঝতে হবে।
৫. গ্রুপ স্টাডি : –
এক সাথে অনেকে মিলে পড়াশুনো করলে যে কোনো কঠিন বিষয় নিজেদের মধ্যে আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করা যায়। কিন্তু একসাথে পড়াশুনো করতে গিয়ে শুধু গল্প করলাম তাহলে কিন্তু শুধু সময়ই নষ্ট হবে। নিজেদের মধ্যে নোট তৈরি করার কাজটি যদি ভাগ করে নেওয়া যায় তা হলে সময় ও পরিশ্রম দুটিই বাঁচবে।  এই অতিরিক্ত সময়ে যে যেই বিষয়ে দুর্বল তাতে বিষয়ে নজর দেওয়ার সময় পাবে।
এছাড়াও পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট করতে পারবো সেই আত্মবিশ্বাস নিজের মধ্যে থাকতে হবে , কঠোর পরিশ্রম করতে হবে। কারণ পরিশ্রমের কোন বিকল্প হয় না।

Leave a Reply

×

Cart